ফেসবুক ফ্রি কেন ? ফেসবুক কি আপনাকে বেচে দিচ্ছে ?

Spread the love

 Why is Facebook free? Is Facebook selling you?

বর্তমানে প্রায় পৃথিবীর এক তৃতীয়াংশ মানুষ ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত। অতীতের যে কোনো ধরনের যোগাযোগের মাধ্যমে তুলনায় ইন্টারনেট ভিত্তিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলি সবচেয়ে সাশ্রয় এবং দীর্ঘতম ও সর্বাধিক কার্যকরী ব্যবস্থা। ভয়েস কল ,ভিডিও কল ও ছবি আদান প্রদান করা সহ এবং বিভিন্ন সেবা প্রদানের জন্য মোবাইল অপারেটর কোম্পানিগুলো গ্রাহকদের কাছ থেকে অনেক অর্থ নিয়ে থাকে। কিন্তু ফেসবুক এই সকল সেবা গুলো সম্পূর্ণ বিনামূল্যে কিভাবে প্রদান করে এবং কেন করে এইসব আলোচনা করব আজকে আমাদের এই পর্বে।

 Why is Facebook free? Is Facebook selling you?
বর্তমানে বিশ্বে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ২৫০ কোটি মানুষ। ২০০০ সালে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল মাত্র ২৫ কোটি। গত এক দশকে ইন্টারনেট পরিষেবা ও ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৮ গুন বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মার্ক জুকারবার্গ ফেসবুক প্রতিষ্ঠা করেন। এটি ২০১০ সালের পর থেকে ফেসবুক ইন্টারনেট ব্যবস্থার সবথেকে শীর্ষে অবস্থান করে আছে। এখনো পর্যন্ত এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিশ্বের সর্বাধিক মানুষজন যোগাযোগ করে থাকেন। বর্তমানে পৃথিবীর প্রতি ছয়জনের মধ্যে একজন এর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। শুধু ফেসবুকের কারণেই প্রতিদিন ইন্টারনেটের মাধ্যমে ব্যবহার বাড়ছে। পৃথিবীতে সকল ধরনের ইন্টারনেটের কার্যক্রমে কুড়ি শতাংশ হয়ে থাকে ফেসবুকে। অনেকের কাছে ইন্টারনেট ও ফেসবুকে মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। উন্নয়নশীল দেশের অনেকেই ইন্টারনেট বলতে শুধুই ফেসবুক কে বোঝে। ফেসবুকের অসংখ্য ছবি আপলোড করা থেকে শুরু করে ভয়েজ কল, ভিডিও কল বা ফেসবুক লাইভ এর মত সকল সেবা ব্যবহারকারীরা বিনামূল্যে পেয়ে থাকেন। প্রকৃতপক্ষে এইসব সেবা মোটেও ফ্রি নয়।

 Why is Facebook free? Is Facebook selling you?

আমরা এইসব সেবার মূল্য পরিশোধ করি আমাদের অমূল্য সম্পদ আমাদের ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে। আমরা কোন পেজে লাইক করি, কোন গ্রুপে যুক্ত হয়ে আছি, কাকে মেসেজ করি, কি মেসেজ করি, কাকে ফলো করি, এবং প্রতিদিনের স্ট্যাটাস আপডেট সকল তথ্য ফেসবুক সংগ্রহ করে। আমাদের ব্যাপারে সংগ্রহীত সকল তথ্য বিশ্লেষণ করে ফেসবুক আমাদের সম্পর্কে এক বিশাল বিস্তারিত প্রোফাইল তৈরি করে। আমাদের রুচি ,পছন্দ, অভ্যাস, চাহিদা ইত্যাদি সম্পর্কে সকল তথ্য ফেসবুক বিজ্ঞাপন দাতাদের কাছে বিক্রি করে দেয়। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের এসব প্রোফাইল মধ্য থেকে বিজ্ঞাপনদাতারা তাদের কাংখিত গ্রাহকদের কাছে তাদের বিজ্ঞাপন পৌঁছে দেয়।

 Why is Facebook free? Is Facebook selling you?

ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেখে যারা যেকোনো পণ্য ক্রয় করে থাকেন ফেসবুক তাদের কাছে বিজ্ঞাপন প্রচারের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয়। এটি এখনো পর্যন্ত আবিষ্কৃত সবচেয়ে সফল এবং কার্যকরী একটি বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা। ফেসবুক ফ্রি সেবা দেয়ার মাধ্যমে ফেসবুক প্রথমে বিপুল সংখ্যক নিয়মিত ব্যবহারকারীদের প্রোফাইল সংগ্রহ করে। এরপরে এসব ব্যবহারকারীদের কে বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছে বিক্রি করে দেয়। প্রকৃতপক্ষে এটি ফ্রি ইন্টারনেট মডেল। আমরা যখন ফেসবুক ব্যবহার করে থাকি তখন আমরা আসলে ভোক্তা নই আমরা আসলে পণ্য।

 Why is Facebook free? Is Facebook selling you?

ফেসবুকের সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল এটি সম্পূর্ণ ফ্রী। তাই ফেসবুকের ব্যয়ভার বহন ও মুনাফা অর্জনের জন্য সম্পূর্ণ বিজ্ঞাপনদাতাদের নির্ভর হতে হয় ফেসবুকে। বিজ্ঞাপনদাতারা চায় ভোক্তার আচরণ সম্পর্কে সর্ব তথ্য জানতে। ফেসবুক প্রতিদিন ১৫০ কোটিরও বেশি লোকের দৈনন্দিন কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে থাকেন। আর এই ফেসবুকের ফ্রি সেবা পাওয়ার বিনিময় আমরা সর্বক্ষণ পর্যবেক্ষণের মধ্যে আছি। ফেসবুক হলো মানুষের ইতিহাসে গুপ্তচরবৃত্তির কাজে সবচেয়ে বড় হাতিয়ার। ফেসবুক গোয়েন্দা সংস্থার গুলোর জন্য তথ্যের এক বিশাল বড়ো ভান্ডার। মার্কিন গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা সংস্থা গুলো তথ্যের এ উৎস নিয়মিত ব্যবহার করে থাকেন। এর ফলে ফেসবুক ক্রমেই জনগণের জন্য অনিরাপদ, ক্ষতিকর ও বিপদজনক এক মাধ্যমে পরিণত হচ্ছে।

 Why is Facebook free? Is Facebook selling you?

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্যের মূল্য হল মাত্র ১২ ডলার। যা প্রায় ১০০০ টাকার সমমূল্য। আমাদের ব্যক্তিত্ব গ্রহ, রুচি, পছন্দ-অপছন্দ, পারিবারিক সম্পর্ক, গোপনীয়তা ইত্যাদির মূল্য টাকা দিয়ে পরিমাপ করা যায় না। অথচ আমরা ১০০০ টাকার বিনিময় এই ফেসবুকের ফ্রী সেবা পাওয়ার জন্য আমাদের সব অমূল্য সম্পদ আমাদের ব্যক্তিগত তথ্য ফেসবুকে দিয়ে থাকি। বর্তমানে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ২০০ কোটির বেশি। এর মধ্যে ১০০ কোটিরও বেশি লোক শুধু স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন। এই কারণে বিশ্বব্যাপি স্মার্টফোনের বিক্রি প্রতিনিয়ত লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলছে।


Spread the love

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *