পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বতমালা – হিমালয় পর্বতমালা

Spread the love

হিমালয় পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ও উচ্চতম পর্বতমালা। এ পর্বতমালা সর্বোচ্চ সিঙ্গ মাউন্ট এত দুর্গম যে এভারেস্টের প্রতি ১০ জনের একজন পর্বতারোহী মৃত্যুবরণ করে। পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বতমালা হিমালয় সম্পর্কে আলোচনা করবো।

এশিয়া মহাদেশের ১৫০০০ মাইল জুড়ে বিস্তৃত হিমালয় পর্বতমালা। নেপাল ,ভুটান ,চীন, ভারত, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান এই ৬ টি দেশে হিমালয়ের অংশ রয়েছে। পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু 14 টি পর্বত এই একটি অঞ্চলে অবস্থিত।

হিমালয় পর্বতমালা থেকে বিশ্বের তিনটি প্রধান নদী সিন্ধু, গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্র উৎপন্ন হয়েছে।

পৃথিবীর সাতটি মহাদেশ প্রায় ৫০ কোটি বছর আগে অতিকায় মহাদেশ গন্ডোয়ানা আকারে একসাথে ছিল, পৃথিবীর টেকটোনিক প্লেটের গতিশীলতার কারণে প্রায় চার কোটি বছর আগে ভারত উপমহাদেশ গন্ডোয়ানা থেকে আলাদা হয়ে যায়। এরপর ভারতীয় ভূখণ্ড তিন কোটি বছর সমুদ্রে ভেসে চার হাজার মাইল অতিক্রম করে , এ সময় ভারত প্রতিবছর ১০ থেকে ১২ ইঞ্চি করে উত্তর দিকে সরে আসে। পৃথিবীর ভৌগলিক পরিবর্তনের ইতিহাসে এ প্রক্রিয়াটি খুবই দ্রুততম সময় ঘটেছে। ভারতীয় উপমহাদেশ অত্যন্ত গতিশীল অবস্থায় সমুদ্রে ভেসে তৎকালীন এশিয়া ভূখণ্ডের সঙ্গে ধাক্কা খায় এ শক্তিশালী ধাক্কার ফলে দুই পাশের ভূমি ভাঁজ উপরে উঠে যায়। অবিশ্বাস্য ব্যাপার হল সেই ধাক্কার ফলে হিমালয় পর্বতমালা সৃষ্টির প্রক্রিয়া এখনো অব্যাহত আছে। এর ফলে প্রতি বছর হিমালয়ের উচ্চতা দুই সেন্টিমিটার করে বাড়ছে ।

হিমালয় পর্বতমালা অঞ্চলে অবস্থিত আমাদের পৃথিবী সবচেয়ে উঁচু স্থান মাউন্ট এভারেস্ট উচ্চতা প্রায় ২৯ হাজার ফুট। এ পর্বত শৃঙ্গ এত উঁচু যে এখানে শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া মত অক্সিজেন নেই। এত উঁচুতে নিমেষের মধ্যে মানুষের রক্ত জমে বরফ হয়ে যেতে পারে। শত শত বছর ধরে নেপালিরা মাউন্ট এভারেস্ট কে ডাকত গৌরীশংকর বা সাগর মাতা নামে। আর তিব্বতীরা ডাকতো চোগল়মা বা পবিত্র মাতা নামে।

১৮৫২ সালে বাঙালি গণিতবিদ ও পর্যবেক্ষক রাধানাথ শিকদার সর্বপ্রথম নির্ণয় করেন মাউন্ট এভারেস্ট বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ। এখন পর্যন্ত প্রায় ৪০০০ জন লোক মাউন্ট এভারেস্টের শীর্ষে আরোহণ করেছেন। মাউন্ডএভারেস্টের চূড়ায় আরোহণ করতে অত্যন্ত দুর্গম পরিবেশের মধ্য দিয়ে যেতে হয় ফলে এ যাত্রায় প্রতি দশজনের মধ্যে একজন পর্বতারোহী মৃত্যুবরণ করে। সর্বোচ্চ চূড়ায় উঠার ৮০০ মিটার এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়। তাই এই অংশটি পর্বতারোহীদের কাছে ডেথ জোন হিসেবে পরিচিত। মাউন্ট এভারেস্টের শীর্ষে আরোহন করে ফিরে আসার সময় অনেকে মারা যায়।

দুইমেরুর পর পৃথিবীর সর্বোচ্চ শীতল স্থান হিমালয় পর্বতমালা অঞ্চল।

 


Spread the love

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *