ভারতের আগামী ২১দিন লকডাউন

Spread the love

1) ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্য কর্মী , অত‍্যবশ‍্যকীয় পন‍্য পরিবহণের পরিবহন কর্মী , পুলিশ ,সামরিক কর্মী,টেলিকম – মোবাইল বিভাগের কর্মী ব‍্যবসায়ী , ডিস্ট্রিবিউটর , জনপ্রতিনিধি,সমস্ত প্রেস ও মিডিয়ায় কর্মী, সাফাই কর্মী ,বিদ‍্যুৎকর্মী ,প্রশাসনিক কর্মী ,কারুর সঙ্গে খারাপ ব‍্যবহার করবেন না কারণ তারা নিজে ও নিজের পরিবারকে বিপন্ন করে আপনার ও দেশের সেবায় নিয়োজিত থাকবে । সমস‍্যা সবার হবেই সবার ভালোর জন‍্য ঘরের বাইরে না বেরিয়ে সমস্ত বিকল্প ব‍্যবহার করুন‌ ।

২) অত‍্যাবশ‍্যকীয় পন‍্য বিক্রেতা ব‍্যবসায়ীরা :

ক্রেতাকে বলুন ২ মিটার দূরে দূরে লাইন করে দাঁড়াতে কাপড় , রুমাল ,মাস্ক যেন অবশ্যই নাকে বাঁধা থাকে , দোকানের খোলা প্রান্তে র পরিধী কমান। সিন্থেটিক পর্দা ব‍্যবহার করুন । নিজে অবশ‍্যই মাস্ক ও হ‍্যান্ডগ্লাভস ব‍্যবহার করুন। যে স্হানে ক্রেতা র মালপত্র রাখবেন সেটার উপরে যেন লোহা, বা কাচের sheet থাকে এবং নিয়মিত সাবান,ক্ষার , বা অ্যালকোহল দিয়ে পরিষ্কার হয়। ক্রেতা যে জিনিস টা চাইবে সেটার দাম বলবেন ও শুধু দেখানোর জন‍্য দোকানে র ভিতরে একটি টুল,টেবিল রাখুন । ক্রেতা কে কোনমতেই কেনার আগে হাত লাগাতেই দেবেন না।সব জিনিস দরদাম হওয়ার পর একটি ছোট মেটাল বক্সে আপনার সামনে নোট গুনে টাকা রাখতে বলুন , টাকায় হাত লাগাবেন না, অন‍্য একটি বড় বক্সে টাকা ঢেলে দিন । যদি টাকা ফেরত দিতে হয় মেটালিক চিমটা বা ক্লাম্পে ধরে ছোট বক্সে রাখুন ও ক্রেতাকে ফেরত দিন ।সম্ভব হলে টাকা দেওয়া নেওয়ার কাজ আর একজন করলে ভালো হয় ।এরপর জিনিস গুলো প‍্যাকেটে করে ক্রেতাকে দিন বিলের সঙ্গে মিলিয়ে নিতে বলুন আপনার সামনে। ক্রেতাদের অনলাইনে পেমেন্ট করতে উৎসাহিত করুন। দিনের শেষে নোট গুছিয়ে মেটাল বক্সে ভরুন।এরপর হাত হ‍্যান্ড ওয়াস , সাবান নিয়মমাফিক ভাবে হাত ধুয়ে ফেলুন ।দোকান ও আশপাশ স‍্যানিটাইজ করুন। বাড়িতে প্রবেশ করার আগে হাত পা সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দোকান খোলার সময় ও হাত হ‍্যান্ড ওয়াস , সাবান নিয়মমাফিক ভাবে হাত ধুয়ে ফেলুন ।দোকান ও আশপাশ স‍্যানিটাইজ করুন ।

৩) পুলিশ ও প্রশাসনিক কর্মী:

বাধ‍্যতামূলকভাবে মাস্ক ও হ‍্যান্ড গ্লাভস ব‍্যবহার করুন। খুব জরুরী প্রয়োজন ছাড়া যারা বাইরে বেরোচ্ছে তাদেরকে যেকোনভাবে বুঝিয়ে বাড়ি পাঠান।
সম্ভব হলে প্রয়োজনের গুরুত্ব বুঝে সাহায্য করুন । বাজার এলাকায় , মোড় এলাকায় টহলদারি বাড়ান। সমস্ত চারচাকার গাড়ির উপর নজর রাখুন, গুরুত্ব বুঝে গাড়ি ছাড়ুন ।বাজার,সেলুন দোকান,চা দোকান ,হোটেল ,মদের দোকান অবশ‍্যই বন্ধ আছে কিনা দেখুন। শুধুমাত্র অত‍্যবশ‍্যকীয় পন‍্যের দোকান ছাড়া অন‍্য দোকান বন্ধ করতে বলুন। যারা কথা শুনছে না আইন অনুসারে ব‍্যবস্থা নিন।

৪)ডাক্তার ও নার্স কর্মী স্বাস্হ‍্যকর্মীরা অবশ্যই যথোপযুক্ত পোশাক, মাস্ক ব‍্যবহার করে নিরাপত্তা ও সতর্কতার সঙ্গে ,সাহসের সঙ্গে কাজ করবেন । কারন এখন দেশরক্ষার দায়িত্বে প্রথম সারিতে রয়েছেন আপনারা‌ই।

৫) মিডিয়া, ইলেকট্রনিক মিডিয়া, টেলিফোন ও মোবাইলের মাধ্যমে জনগনকে ২১ দিন ঘরে থাকতে বারবার সতর্ক করা , গ্রামীণ এলাকায় মাইকের সাহায্য ঘোষনা করা । প্রধানমন্ত্রী, মুখ‍্যমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির কথা Record করে মাইকে ঘোষনা করা ।

৬) সমস্ত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সম্পূর্ণ রাখতে ব‍্যবস্হা নেওয়া ।  সমস্ত সামাজিক ,অনুষ্ঠান পিছিয়ে দেওয়া ।

৭) যারা ক্রেতা তারা যেটা কিনবেন শুধু সেটায় হাত দিন ।

 

বর্তমান দেশের পরিস্থিতিতে সমস্ত নাগরিক যদি কিছু নিয়ম মেনে চলেন তাহলে আগামী দিনে আপনার ও দেশের মঙ্গল হবে।

১) প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরোবেন না। পরিবারের অন‍্যদের বেরোতে দেবেন না। বৃদ্ধ(৬০ বছরের উপর ) ও শিশুদের (১০ বছরের নীচে ) খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে নিয়ে যাবেন না। বাড়ির বাইরে যেতে দেবেন না।

২) যতটা সম্ভব মানবিক হয়ে যতটা আপনার প্রয়োজন ততটা ক্রয় করুন। খুব বেশি অত‍্যবশ‍্যকীয় পন‍্য জমা করবেন না।

৩) ডাক্তার,নার্স ,চিকিৎসা কর্মী, স্বাস্হ‍্যকর্মী, বিভিন্ন কারখানার অত‍্যবশ‍্যকীয় পন‍্য উৎপাদনে কর্মরত ব‍্যাক্তি , প্রশাসনের দপ্তরে কর্মরত ব‍্যাক্তি, জনপ্রতিনিধি, স্বেচ্ছাসেবক , প্রশাসনের ব‍্যাক্তিগনের যাতে মনোবল সর্ব্বোচ্চ থাকে তার জন‍্য সবাই যে যার মতো চেষ্টা করুন , খুব প্রয়োজনীয় ,খুব আবশ‍্যক কাজ ছাড়া এনাদের কাছে ভিড় জমাবেন না। তাতে এদের কাজের চাপ কমবে , করোনা মোকাবিলায় আরও কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারবে।

৪) ভয় পাবেন না ,ভয় দেখাবেন না ,আতঙ্কিত হবেন না । কিন্তু খুব সতর্ক থাকবেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। কঠিন সময়ে খুব ঠান্ডা মাথায় সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করতে হবে । ভয় পেলে ও আতঙ্কিত হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় ।

৫) সবার প্রতি যতটা সম্ভব মানবিক হয়ে কাজ করতে হবে। দুর্যোগ একসময় কেটে যাবে কিছু সময় সবার কিছু অসুবিধা হবে , ধৈর্য্য হারালে চলবে না ।


Spread the love

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *