ভাইরাসের আক্রান্ত

Spread the love

🔴   ভাইরাসের নাম – “সারস”।
উপসর্গ — শ্বাসকষ্ট।
আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার সম্ভবনা — ৩৭%…

🔴   ভাইরাসের নাম — “জীকা”।
উপসর্গ — চুলকানি,, গাঁটে ব্যাথা।
আক্রান্তের মৃত্যু সম্ভবনা — ২৫%..

🔴   ভাইরাসের নাম – “ইবোলা”।
উপসর্গ – জ্বর ,,শারীরিক দূর্বলতা।
মৃত্যুর সম্ভবনা — ৯২%…

Ebola virus from Mali blood sample

🔴   ভাইরাসের নাম – “মারবার্গ”।
উপসর্গ – হজমের গোলমাল, এবং,, দশ দিনের মধ্যে মৃত্যু।
আক্রান্ত ব্যাক্তির মৃত্যু সম্ভবনা — ৯০%…..

🔴   ভাইরাসের নাম — “নীপা”।
উপসর্গ – মানসিক ভারসাম্যহীনতা।
মৃত্যুর সম্ভবনা — ৭৫%…

🔴   ভাইরাসের নাম – “ক্রিমিয়ান কঙ্গো– ফিভার”।
উপসর্গ — নাক-মুখ দিয়ে রক্তক্ষরণ।
মৃত্যু সম্ভবনা — ৪৫%…

Tique dans la peau

🔴   ভাইরাসের নাম – “ইনফ্লুয়েঞ্জা”।
উপসর্গ – গলা ফোলা, গলা ব্যাথা।
মৃত্যুর সম্ভবনা — ১৫%…..

🔴   ভাইরাসের নাম – “করোনা”।
উপসর্গ – শ্বাসনালী ইনফেকশন, জ্বর – সর্দি -কাশি।
মৃত্যুর সম্ভাবনা — ২.৫ %….. মাত্র।

🔴  “করোনা” ভাইরাস নিয়ে অযথা ভয় পাওয়ার কিছু নেই। কিছুটা সতর্কতা অবলম্বন করেই এই ভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

🔴  শরীরের যথাযথ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকলে, এই ভাইরাস থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া যাবে।

🔴  রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে, বেশী বেশী করে শাক-শব্জি আহার করুন। বেশী করে ফল খান। ডাবের জল, বিভিন্ন ফলের জুস পান করুন।।

🔴  শীতল পানীয়, ফাষ্ট-ফুড, জাঙ্ক ফুড, প্রসেস ফুড আপাতত বর্জন করুন।

🔴  করোনা ভাইরাস দূর্বল একটি ভাইরাস। এর চেয়েও বহু ভয়ংকর ভাইরাসের হাত থেকে আমরা নিজেদের রক্ষা করতে পেরেছি।

🔴  অতীতে বহু প্রতিকূল পরিস্থিতিতে। আমাদের মেডিক্যাল সায়েন্স নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়েছে এবং সফল হয়েছে। এবারেও আমরা সফল হবো।

🔴  মাথায় রাখতে হবে, ভয় হলো মৃত্যুর যমজ ভাই।

গবেষক দের মতে করোনা ভাইরাসের একটা জায়গায় ১২ ঘন্টার বেশি বাঁচতে পারে না। আর এই ১৪ ঘন্টার কারফিউ এর ফলে মানুষ বাড়ি থেকে না বেড়ালে জমায়েত না হলে ভাইরাস আক্রান্ত মানুষের সংস্পর্শ এ না এলে এই একদিন ১৪ ঘন্টা ভাইরাস এর সংক্রমণ এর চেন টা ভেঙে যাবে। রবিবার ছুটির দিন কেনো বাছা হলো কারন ছুটির দিনে বেশি সংখ্যক মানুষ বাইরে একত্রিত হয়। ভারতে প্রায় ১২৫ কোটি মানুষ। তার এক চতুর্থাংশ সংক্রামিত হলে ত্রিশ কোটির বেশি। সেই চাপ সামলানোর মতো পরিকাঠামো ভারতে কেন, কোথাও নেই। সংক্রামিত রোগীদের দশ শতাংশের যদি আইটিউ বা ভেণ্টিলেটর লাগে, তবে তিন কোটি। সমগ্র ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে চাপে। করোনায় মৃত্যুর হার বেশি নয় বলে যাঁরা সচেতনতা বৃদ্ধির সরকারি প্রচারকে অহেতুক আতঙ্ক বলে বিদ্রূপ করছেন, তাঁদের জানাই, চিকিৎসা না পেলে কিন্তু মৃত্যুর হার অনেক বাড়বে।
আর এই রবিবার জনতা কারফিউ এর মাধ্যমে আমরা ভাইরাস সংক্রমণ এর চেন টা ভেঙে দিতে পারি আমরা ভারতবাসী বেঁচে যাবো।

আজ সারা বিশ্বব্যাপী মারন করোনা ভাইরাস এর প্রভাবে জনজীবন বিপন্ন। অনেক মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন। এখনো বহু মানুষ আক্রান্ত। আবার বহু মানুষ সুস্থ হয়ে উঠছেন।সেই মারন ভাইরাস এবার আমাদের দেশেও হানা দিয়েছে।দিন দিন সেই ভাইরাস এর প্রভাব বাড়ছে। আক্রান্ত এর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিছু মানুষ দেহত্যাগ ও করেছেন।এই মারন ভাইরাস কে রোধ করার জন্য কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকার অনেক সচেতন মূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। মেডিকেল ব্যাবস্থা এর সঙ্গে সঙ্গে সারা দেশ প্রায় লক ডাউন পরিস্থিতিতে।আজ হতে আমাদের রাজ্য পুরোপুরি লক ডাউন ঘোষিত হলো। প্রত্যেক মানুষই গৃহবন্দি।অতি প্রয়োজন ব্যাতিত রাস্তায় বেরোতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আমাদের দেশের মধ্যবিত্ত মানুষের সংখ্যা তুলনামূলক বেশি।সবাই প্রায় প্রতিদিন রোজগার এর উপর নির্ভর করে জীবন নির্বাহ করেন। অনেক মানুষ তার উপার্জন এর জন্য বিভিন্ন স্মল এবং লার্জ ফাইনান্স হতে লোন নিয়েছেন। কেউ একটা অটো রিক্সা কিনেছেন।কেউ অনান্য ব্যাবসা করছেন।যেখান হতে সে নিজের এবং পরিবারের জীবন চালনা করেন।এই লোন এর জন্য প্রতি মাসে তাদের ফাইনান্স হতে ধার্যকৃত কিস্তি দিতে হয়। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে লক ডাউন এর দরুন প্রত্যেকের জীবিকার নির্বাহে একটা ব্যাঘাত সৃষ্টি করেছে।এমত অবস্থায় মানুষ তাদের কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে জীবন চালনা করবেন না কিস্তি দেবেন বুঝে উঠতে পারছেন না। কারন কিস্তি পরিশোধ না দিলে অনেক কঠিন সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে মানুষদের। সরকারের কাছে বিষয়টি প্রতিস্থাপন করে বলতে চাই যে এই সময় প্রত্যেক ফাইনান্স এর যা যা কিস্তি রয়েছে তা পোস্টপেন করলে বহু গরিব মানুষ উপকৃত হবেন। পরিস্থিতি ঠিক হলে আবার পুনরায় কিস্তি পরিশোধ করবেন সাধারণ মানুষ।সবার মতামত আশা করছি । ধন্যবাদ সবাইকে ।

করোনা হটলাইন নম্বর

নিজের অথবা পরিবারের কারো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষন দেখা দিলে” ইনস্টিটিউট অব এপিডেমোলোজি ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড রিসার্চ” আইইডিসিআরে যোগাযোগ করুন নিচের নম্বর গুলোর মাধ্যমে,

IEEDCR Hotline

+8801937000011
+8801937110011
+8801927711784
+8801927711785


Spread the love

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *