করোনা ভাইরাস

Spread the love

করোনা ভাইরাস লক্ষণগুলো হলো 

ক) সর্দি
খ) গলা ব্যথা
গ) কাশি
ঘ) মাথা ব্যাথা
ঙ) জ্বর
চ) হাঁচি
ছ) অবসাদ
জ) শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া।

এক্ষেত্রে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে যায় এবং যারা বয়স্ক তাদের এই ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে এবং নিউমোনিয়া বা শ্বাস নালীর ব্যাধির মতো মারাত্মক অসুস্থতায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও বেশি থাকে।

মার্স ও সার্স-এর লক্ষণগুলো মারাত্মক হয়, এর কারণে গুরুতর শ্বাসকষ্টের সমস্যা, কিডনিতে সমস্যা, ডায়রিয়া এবং কোনো ব্যক্তির মৃত্যুও হতে পারে বলে জানা গেছে।

হিউম্যান করোনা ভাইরাস নির্ণয় হিউম্যান করোনা ভাইরাস নির্দিষ্ট কয়েকটি পরীক্ষার মাধ্যমে নির্ণয় করা হয়, যথা –

 

মলিকিউলার টেস্ট : সক্রিয় সংক্রমণের লক্ষণগুলি খুঁজে বের করতে।


সেরোলজি টেস্ট : এই পরীক্ষাটি নজরদারি করার উদ্দেশ্যে। এটি পূর্ববর্তী সংক্রমণ থেকে অ্যান্টিবডিগুলি সনাক্ত করার জন্য করা হয়, যা একজন ব্যক্তির ভাইরাসের ধরন প্রকাশিত করে।

হিউম্যান করোনা ভাইরাস চিকিৎসা এর সঠিক চিকিৎসা এখনো আবিষ্কার করা হয়নি। বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিন নিয়ে এখনো গবেষণা চলছে। তবে, অনেকগুলো সহায়ক চিকিৎসা পদ্ধতি এবং ওষুধ রয়েছে যেগুলো এর হালকা থেকে মাঝারি উপসর্গগুলির চিকিৎসা করতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, ব্যথা ও জ্বরের চিকিৎসার জন্য ওষুধ বা গলা ব্যথা নিরাময়ের জন্য গরম পানি, ইত্যাদি।

হিউম্যান করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ

ক) হাঁচি বা কাশির পরে হাত ধুয়ে নিন।
খ) কাশি বা হাঁচির আগে মুখ ঢেকে নিন।
গ) আপনার যদি মনে হয় যে আপনি সংক্রামিত, তাহলে কোনো ব্যক্তির সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা এড়িয়ে চলুন।
ঘ) রান্না না করা গোশত ও ডিম খাওয়া এড়ান। ]
ঙ) নিজেকে সারাক্ষণ হাইড্রেট রাখুন।
চ) লক্ষণগুলো দেখা দেয়া মাত্রই ওষুধ খান এবং পরিস্থিতি গুরুতর হয়ে উঠতে দেবেন না।
ছ) ধোঁয়াটে এলাকা বা ধূমপান করা এড়িয়ে চলুন।
জ) যথাযথ বিশ্রাম নিন।
ঝ) ভিড় থেকে দূরে থাকুন।

ভাইরাসের নাম – “করোনা”।
উপসর্গ – শ্বাসনালী ইনফেকশন, জ্বর – সর্দি -কাশি।
মৃত্যুর সম্ভাবনা — ২.৫ %….. মাত্র।

corona vairash

“করোনা” ভাইরাস নিয়ে অযথা  ভয় পাওয়ার কিছু নেই। কিছুটা  সতর্কতা অবলম্বন করেই এই  ভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

শরীরের যথাযথ রোগ প্রতিরোধ  ক্ষমতা থাকলে, এই ভাইরাস থেকে  সহজেই মুক্তি পাওয়া যাবে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে, বেশী বেশী করে শাক-শব্জি আহার  করুন। বেশী করে ফল খান। ডাবের  জল, বিভিন্ন ফলের জুস পান করুন।।

শীতল পানীয়, ফাষ্ট-ফুড, জাঙ্ক ফুড, প্রসেস ফুড আপাতত বর্জন করুন।

করোনা ভাইরাস দূর্বল একটি ভাইরাস।  এর চেয়েও বহু ভয়ংকর ভাইরাসের হাত থেকে আমরা নিজেদের রক্ষা করতে  পেরেছি।

অতীতে বহু প্রতিকূল পরিস্থিতিতে। আমাদের মেডিক্যাল সায়েন্স নিরলস  প্রচেষ্টা চালিয়েছে এবং সফল হয়েছে।  এবারেও আমরা সফল হবো।

মাথায় রাখতে হবে, ভয় হলো মৃত্যুর যমজ ভাই।

সবাই সুস্থ থাকুন আর অপরকে সুস্থ রাখুন


Spread the love

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *